মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কার্যবিবরণী ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়

উখিয়া, কক্সবাজার।

www.ukhia.coxsbazar.gov.bd

আগস্ট/১৪ মাসে অনুষ্ঠিত উখিয়া উপজেলা চোরাচালান কমিটির সভার কার্যবিবরণীঃ

 

সভাপতি               ঃ       মোঃ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উখিয়া, কক্সবাজার।

সভার স্থান             ঃ       উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ, উখিয়া।

তারিখ ও সময়       ঃ       ২৬/০৮/২০১৪খ্রিঃ, দুপুর-১২.৩০ ঘটিকা।

সভার উপস্থিতি       ঃ       পরিশিষ্ট ‘ক’ তে সন্নিবেশিত হলো।

 

সভাপতি উপস্থিত সকল সদস্যগণকে স্বাগত জানিয়ে সভার কাজ শুরম্ন করেন। অতঃপর বিগত সভার কার্যবিবরণী পাঠ করে শুনানো হয়। কোন সংশোধনী না থাকায় তা সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয়।

(চোরাচালান সংক্রামত্ম তথ্য)

ক্রঃ

নং

আটকারী সংস্থার

নাম

মামলার সংখ্যা

মোট মূল্য

আটককৃত মালামাল

ধৃত আসামীর সংখ্যা

মমত্মব্য

০১

বালুখালী বিজিবি

০৭টি

৬৫৯৮০/-

বার্মিজ মারডালাই রাম মদ, বার্মিজ কান্ট্রি ডাইজিং, বাংলাদেশী ডিজেল, স্ট্রারস্পীড ইত্যাদি।

---

 

০২

মরিচ্যা চেকপোষ্ট

-

-

-

-

 

০৩

রেজু আমতলী বিজিবি

-

-

-

--

 

০৪

পালংখালী বিওপি

০৬টি

৪১৭৪১০/-

আকাশমনি গোল কাঠ, আকাশমনি কাঠের খুটি

---

 

০৫

বন বিভাগ

০৪ টি

১৪২৯২৫/-

বিবিধ রদ্ধা ও গোল কাঠ

---

 

 

ক্রঃনং

আলোচনা

সিদ্ধামত্ম

বাসত্মবায়নকারী কতৃপÿ

০১

সভাপতি, সভায় জানান যে, ডিলারদের জ্বালানী ও ভোজ্য তৈল সরবরাহের জন্য অত্র কার্যালয় হতে অনুমতি দেয়া হলেও পরিবহনের সময় বর্ডারে সন্দেহ হলে অথবা অনুমতির চেয়ে অতিরিক্ত মালামাল নিয়ে গেলে তা যথাযথ কর্তৃপÿ কর্তৃক যাচাই-বাছাই করে কোন অবৈধ মালামাল পাওয়া গেলে তা জব্দ করে সংশিস্নষ্টদের বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে। কোন মালামাল যাতে চোরাই পথে পাচার না হতে পারে সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য সংশিস্নষ্ট সকলকে অনুরোধ করা হয়।

অনুমতি পত্রে উলেস্নখিত মালামাল নিয়ে যাওয়ার সময় যাতে অনুমতি পত্রের পিছনে কি পরিমাণ জ্বালানী ও ভোজ্য তৈল নিয়ে যাচ্ছে তা উলেস্নখ করে দেয়ার সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয় এবং এ বিষয়ে সংশিস্নষ্ট কাষ্টম্স/বিজিবি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

সংশিস্নষ্ট সকল

০২

চেয়ারম্যান, রত্নাপালং ইউ.পি সভায় জানান যে,  রেজু, নাইÿ্যংছড়ি এলাকা থেকে প্রতিনিয়ত দেশীয় তৈরী চোলাই মদ কোর্টবাজারে আসে। গত মাসে মোসত্মাক নামে একজন ডাকাত মদ নিয়ে আসার পথে আমার এলাকার মহলস্নাদার তাকে ধৃত করে। ধৃত করার কারনে ঘিলাতলী এলাকার কিছু মাদক ব্যবসায়ী  মহলস্নাদারকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদর্শণ করেন। তিনি আরো জানান যে, কোর্ট বাজারের পূর্বে চাকবৈঠা স্টেশনে নুরম্ন ডাকাতের চায়ের দোকানে প্রতিনিয়ত জুয়া খেলার আসর বসে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সভাকে অনুরোধ করেন।

অফিসার ইনচার্জ, উখিয়াকে অবৈধ মাদক ব্যবসা ও জুয়া খেলার আসর বন্ধ করার ব্যাপারে সর্বসম্মত্রিমে সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থানা।

                                                                       

০৩

অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থানা জানান যে, ইতিমধ্যে মানব প্রচার সংক্রামত্ম ০২টি মামলা হয়েছে। মানব প্রচার আগের তুলানায় অনেক কমে গেছে। এ ব্যাপারে সভায় বিসত্মারিত আলোচনা করা হয়।

কোন অবস্থাতে যাতে মানব প্রচার না হয় সে বিষয়ে প্রয়োনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সর্বসম্মাতিক্রমে সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থানা।

০৪

 

উখিয়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সভায় জানান যে, উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধভাবে অবস্থিত করাতকলে সরকারী সংরÿÿত বনাঞ্চলের কাঠ চিরাই করে বনাঞ্চল ধ্বংস করেই যাচ্ছে। করাতকল মালিকদের বিরম্নদ্ধে সংশিস্নষ্ট বিভাগকে মামলা করার জন্য সভাকে অনুরোধ করেন। তিনি আরো জানান যে, মনখালী, ছেপটখালী এলাকা দিয়ে ফয়েজ সিকদার, পিতা- মৃত এসত্মাফিজুর রহমান, এলাকার লোকজনকে বিভিন্নভাবে বিদেশ যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে মানব পাচার করছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সভাকে অনুরোধ জানান।

সরকারী সংরÿÿত বনাঞ্চল রÿার জন্য অবৈধ করাতকল মালিকদের বিরম্নদ্ধে মামলা করার জন্য এবং মানব পাচার রোধ করার জন্য সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

১। সহকারী বন সংরÿণ, উখিয়া।

 

২। অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থান।

 

 

 

০৫

সভাপতি জানান যে,সরকারি বনভূমি দখল করে ঘরবাড়ী নির্মাণ করছে এবং সরকারি বনের গাছপালা কেটে ধ্বংস করছে। সরকারি বনের গাছপালা কেটে অবৈধ করাত কল তা চিরাই করে বাজারে বিক্রি করছে। যার ফলে গাছপালা এবং বনভূমি উভয়ই ধ্বংস করছে। এ বিষয়ে সভায় বিসত্মারিত আলোচনা করা হয়।

অবৈধ করাতকল বন্ধের জন্য বন বিভাগকে অনুরোধ করেন। কোন বেওয়ারিশ লোককে আসামী করে মামলা করা যাবে না তবে গাছ সে জায়গায় পাওয়া যাবে সে জায়গার মালিকের বিরম্নদ্ধেও মামলা করা যাবে।

১। সহকারী বন সংরÿক, উখিয়া।

 

২। অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থান।

৩। রেঞ্জ অফিসার, উখিয়া রেঞ্জ।

০৬

সভাপতি জানান যে, সীমামত্ম পার্শ্ববর্তী এলাকা বিশেষ করে টেকনাফ,উখিয়া উপজেলায় বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে কোন অবস্থাতেই ভাইরাসবাহী কোন গরম্ন,মহিষ,ছাগল,ভেড়া ইত্যাদি প্রবেশ করতে না পারে এ ব্যাপারে বিজিবিকে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়। এ বিষয়ে সভায় বিসত্মারিত আলোচনা হয়।  

ভাইরাসবাহী গরম্ন,মহিষ,ছাগল,ভেড়া ইত্যাদি পশু যাতে সীমামত্ম এলাকা দিয়ে প্রবেশ করতে না পারে এ ব্যাপারে বিজিবিকে ব্যবস্থা গ্রহণ করার বিষয়ে সভায় সিদ্ধামত্ম গৃহিত হয়।

১। অফিসার ইনচার্জ উখিয়া থানা।

২। সংশিস্নষ্ট বিওপি কমান্ডার,উখিয়া।

           

সভায় আর কোন আলোচ্য বিষয় না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার কাজ সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

 

 

 

 

(মোঃ সাইফুল ইসলাম)

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

উখিয়া, কক্সবাজার।


 

 

স্মারক নং- ০৫.২০.২২৯৪.১২৩.০০৬.০০১.২০১৪-                                     তারিখঃ        /      /২০১৪খ্রিঃ

অনুলিপিঃ সদয় অবগতি/প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রেরণ করা হলোঃ

০১। মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য, কক্সবাজার-৪।

০২। জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার।

০৩। পুলিশ সুপার, কক্সবাজার।

০৪। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উখিয়া, কক্সবাজার।

০৫। সহকারী পুলিশ সুপার, উখিয়া সার্কেল, উখিয়া, কক্সবাজার।

০৬। অফিসার ইনচার্জ, উখিয়া থানা, কক্সবাজার।

০৭। ভাইস-চেয়ারম্যান/মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উখিয়া, কক্সবাজার।

০৮। সহকারী বন সংরÿক, উখিয়া, কক্সবাজার।

০৯। উপজেলা........................................................................কর্মকর্তা, উখিয়া, কক্সবাজার।

১০। চেয়ারম্যান ........................................................................ইউপি (সকল), উখিয়া, কক্সবাজার।

১১। সভাপতি/সম্পাদক........................................................................ প্রেস ক্লাব, উখিয়া, কক্সবাজার।

১২। অফিস কপি/ মাষ্টার ফাইল

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

উখিয়া, কক্সবাজার।